উপহার ৫৬

Upohar 56

Upohar 56 is an unique style Bengali font. This font is available for Unicode. You can use it in anywhere, specially for making logo, posters, magazines, banners and etc.
Author Notes : This is free font for Personal, Commercial and all type of usage. You can use it in anywhere.
Font Details
Type:Unicode
Designer:Ihtishaam Ahmed
Styles:1
Published:9 January 2018
Downloaded:



    |     Font Size  
Upohar
আমার সোনার বাংলা
ছোটো গল্পঃ- স্নিগ্ধতা
মীটিংগ চলা কালীন হঠাতই স্নিগ্ধা এর ফোন এর আলো জলে উঠলো. কিন্তু ঐ সময় তো আকাশ ফোন করে না. কিন্তু স্নিগ্ধা ফোন টা কেটে আবার বস এর প্রেজ়েংটেশন এর দিকে নজর ফেরালো. একটা ছোট্ট sms এলো ঠিক দুটো মিস কল এর পর "শ্যামবাজার মেট্রো 3 no. গেট ...সন্ধ্যে 6 টায় ...না শুনবো না..." Sms টা দেখে একটু অবাক হলেও ছোট্ট একটা "hmm" রিপ্লাই পাঠিয়ে দেয় স্নিগ্ধা. অনেক দিন পরেই এরম আবদার আকাশের এবং সেই বাড়ী গিয়ে বা করবে কি সে তাই বিনা কিছু জিগ্গাসা ক৉রেই সম্মতি. ----- গেট থেকে বেরিয়েই দাঁড়িয়ে থাকা সেই পুরানো মুখ, শার্ট টা হাফ ইন হাফ আউট, চুল একটু এলোমেলো আর কাঁধে ব্যাগ, এক দৃষ্টে ফোনে কিসব টাইপ করছে. কিন্তু আজ অফিস এর ক্লান্তি একটু কম. অবাক তো করল বাঁ হাত এ ধরা ফুল এর তোরা টা. "এই যে ছোকরা...হঠাত্ 6 টার সময় এখানে কেন ???" স্নিগ্ধা এর গলা শুনেই একটা অদ্ভুত হাসি আকাশের মুখে. "আমার লেটুস পাতা 6:30 বাজে...তোমার রোমিওর যে মশার কামড় খেয়ে ম্যালেরিয়া হয়ে যাবার পর্যায়..." আকাশ বলেন ওঠে. "বললাম তো দেরি হবে একটু...আর এটা কার জন্য ?" হাঁটতে থাকে দুজনে বাগবাজারের ঘাট এর দিকে. "এই প্রেম করতে আসছি তাই একটু রোমান্টিক হবার সল্প প্রচেষ্ঠা মাত্র...আপনার জন্য..." আকাশ হেসে স্নিগ্ধা কে ধরিয়ে দেয় তোরা টা. "ঢং কত দেখব...মতলব কি বল ..." "কতদিন তোর সাথে ঘুরতে যাই না..." বলে হাতটা ধরল আকাশ স্নিগ্ধার. "ব্যাস্ত দুজনই..." স্নিগ্ধা মিনমিন করে বললো. "তার উপর পুজো আসছে এখন তো চাপ আরো..." "Bonus ঢুকেছে..." আকাশ আলতো গলায় বলে. "ওই জন্যে তোমার এত কিছু করা হচ্ছে...এই বার বুঝলাম...." দুজনেই হাসতে শুরু করে দেয়. "ম্যাডাম আপনার পুজো এর শাড়ী টা যে একটু দামী হবে এবার..." আকাশ বলে , স্নিগ্ধা কিছু বলতে যায় কিন্তু আকাশ চুপ করিয়ে দেয়. "জানি তোর অনেক আছে তাও আমি দেব..." আকাশ বলে ওঠে. "এখানে বসবি ?" স্নিগ্ধা ফোন এর টর্চ টা ওন করে. "বসলেই হল কোথাও একটা..." আকাশ জায়গা টা একটু দেখে বসে পরে ঘাট এর সিড়ি টায়. "বল দিন কেমন গেলো ?" স্নিগ্ধা এর এক কাঁধে হাত দিয়ে তাকে একটু নিজের কোল ঘেঁষা করে নিয়ে বলে আকাশ. স্বভাব বসত স্নিগ্ধার মাথাটা হেলে পরে আকাশের কাঁধে. সারাদিন এর ক্লান্তির যেন ছোট্ট অবসর. "ওই এক...বস এর বক বক and all..." একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে স্নিগ্ধা. "খেয়েছিস কিছু ?" "নাহ" "জানতাম ..." বলে আকাশ পাশে রাখা ব্যাগ থেকে একটা কেক এর প্যাকেট বের করে দেয়. "রাখ তো এখন ভালো লাগছে না খেতে ..." স্নিগ্ধা একটু বিরক্তি নিয়ে বলে. আকাশের এই careness টা সেই কলেজ এর ফার্স্ট ইয়ার থেকেই ছিল, এখনো বদলায়নি. আসলে স্নিগ্ধা কে প্রায় আদর যত্নে মানুষ ই করেছে আকাশ ই. যেকোনো ঝামেলায় , সমস্যাতে কেবল আকাশ আকাশ আকাশ. ঝগড়া মারপিট ওহ করেছে দুজনে. হ্যাঁ এখনো করে. "তাহলে কি খাবি ?" "আদর..."বলে হেসে ওঠে স্নিগ্ধা. বাচ্চা বাচ্চা স্বভাব টা এখনো যায়নি তার. "সে তো বটে কিন্তু তাতে পেট ভরে না বাবু..." "Eww বাবু না প্লীজ় পোষায় না..." "ওলে আমাল বাবু ..." "আকাশ না প্লীজ়..."স্নিগ্ধা সরে বসে. "হই এদিক আয়ে কোথায়ে যাচ্ছিস..." আকাশ আবার তাকে টেনে নেয় কাছে. গঙ্গার হাওয়াটা আরো জোরালো হয়. "এখানে প্রথম মিট আমাদের তাই না ?" আকাশ বলে ওঠে. "মনে আছে ?" স্নিগ্ধা হাসে একটু. "ব্লূ টপ , রেড জিন্স...and I was wearing..." "রেড শার্ট ব্লাক জিন্স.." স্নিগ্ধা বাকিটা বলে দেয়. "ফার্স্ট কিস ওহ্ এখানে..." আকাশ বলে. "Date বল ?" "এই বাল এত মনে নেই যে date কবে..." স্নিগ্ধা হেসে ওঠে ওর কথায়. "কত স্মৃতি এখানে বল...সেই কলেজ দিন গুলো ভীষণ মিস করি....কি ঘুরতাম..." "কত কাণ্ড করেছি দুজনে..." "আমার ex কে ধরে কেলিয়েছিলি..." স্নিগ্ধা জোড়ে হেসে ওঠে. "আমার property তে হস্তক্ষেপ পছন্দ করি না ..." আকাশ বলে. "সেই এখন আর possessive এতো ?" "নাহ তখন একটু ভয় ছিলো, সুন্দরী মেয়ে তো আর তোমার উরু উরু মন, কেউ আবার পটিয়ে নিলেতো আমার প্রেম ভেস্তে যাবে তাই possessive বেশি ছিলাম ...এখন ওহ্ আছি কিন্তু এখন তুই নিজেই যাবি না কোথাও এই ভরসা টা আছে ..." "সেই রে সেই... এই ভয় টা তোর থেকে আমার বেশি ছিলো....তোর পিছনে যে পরিমান মেয়ে পরে থাকত....আর বলিস না ভাই...." "সেই রে বনু আমার ..." আকাশ বলে ওঠে. নস্টালজিক হয়ে ওঠে গল্প. কত স্মৃতি জড়ানো. আজ হয়তো ব্যাস্ত দুজনই. একে ওপর কে ওতটা সময় হয়তো দিতে পাড়েনা কিন্তু এই মুহূর্ত গুলি রসদ যোগায় ভালো ভাবে ভালবাসার মানুষ তার সাথে বাঁচার. "কটা বাজে ....মা এখুনি দেখবি ফোন করবে...বলাও হয়নি..." স্নিগ্ধা বলে ওঠে. "বলবি আমার সাথে ছিলি আবার কি..." "চল ওঠা যাক তাহলে..." দুজনই উঠে যায়. গঙ্গার পার , বাগবাজারের ঘাট সাক্ষী থাকে কাটানো আর এক প্রেমের মুহুর্তের. __ "এতো দেরি হল কেন রে ..." বাড়ী ঢুকতেই আকাশের মায়ের প্রশ্ন. "ওই যে আপনার ছেলে কে বলুন ওহ্ দেরি করিয়ে দিল তো..." স্নিগ্ধা শাশুড়ি মা কে উত্তর দিয়ে দেয়. "আবার ঘুরতে চলে গেছিলে দুটোই...তোরা ছেলে বৌ এ পারিস বটে...ফ্রেশ হয়ে আয়ে খাবার বাড়ছি..." "হ্যাঁ মা ..." দুজনই একসাথে বলে ওঠে... সব আকাশে স্নিগ্ধতা সবসময় থাকে না কিন্তু ঝড় বৃষ্টি কাটিয়ে যারা থেকে যায় তারা সব আকাশেই স্নিগ্ধতা খুঁজে নেয়...
গল্পকারঃ- শ্বেতা নস্কর